|

প্রতিহিংসার স্বীকার হাজি শহিদ; সহযোগিতা চাইলেন গণমাধ্যম কর্মীদের

প্রকাশিতঃ ৭:০৩ অপরাহ্ণ | জানুয়ারি ২৪, ২০১৯

স্টাফ রিপোর্ট, ভালুকার খবর: ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নের স্বনামধন্য ব্যবসায়ী ও সমাজ সেবক আলহাজ্ব মো. শহিদুল ইসলাম একটি মহল দ্বারা প্রতিহিংসার স্বীকার হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন।  বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়নে তাঁর ব্যবসায়ী কার্যালয়ে স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি গণমাধ্যম কর্মীদের সহযোগীতা চেয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করে বলেন, “আমি সম্মানের সাথে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করে আসছি। সমাজে ব্যবসায়ী হিসেবে আমার সুনাম রয়েছে। একটি মহল প্রতিহিংসা সুলভ আচারন করছে আমার বিরুদ্ধে। তারা কিছু সাংবাদিক ভাইদের ভুল বুঝিয়ে মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে  আমার এবং আমার পরিবারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। আমি আপনাদের সহযোগীতা চাই। যদি চলার পথে কোন ভূলত্রুটি হয়ে তাকে তাহলে আমাকে সুদরিয়ে নেবেন। আমি এবং আমার পরিবারকে অবগত না করে কেউ আমাদের সম্মান নষ্ট করবেনা”।

তিনি ওই লিখিত বক্তব্যে আরও বলেন,  “আমার বাবা স্বাধীন বাংলাদেশের পর হবিরবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ গঠনের শুরু থেকে টানা ১৫ বছর সুনামের সাথে ইউপি সদস্যের দায়িত্ব পালন করেছেন। আমি ভালুকা ডিগ্রী কলেজ থেকে এইসএসসি পাশ করে পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া ধানের ব্যাবসার হাল ধরি এবং পৈত্রিক সূত্রে ১৮০ বিঘা জমির মালিক হই। আমার বড় ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান মামুন সুনামের সাথে ব্যবসা করে যাচ্ছে”।

এই বিষয়ে হবিরবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান বলেন, “আলহাজ্ব শহিদুল ইসলামের পিতা তাঁর সাথে সুনামের সাথে দীর্ঘদিন ইউপি সদস্যের দায়িত্ব পালন করেছেন এবং পৈত্রিক সূত্রে হাজি শহিদ বেশ সম্পত্তির মালিক। পড়াশোনা শেষ করে সততার সাথে ব্যবসা পরিচালনার মাধ্যমে তার ব্যবসার প্রসার ঘটেছে।
হবিরবাড়ি ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চু বলেন, “দলমত নির্বিশেষ হবিরবাড়িসহ গোটা উপজেলায় হাজি শহিদুল ইসলাম একজন জনপ্রিয় ও ভাল মানুষ হিসেবে স্বীকৃত। তিনি ব্যবসা করে সমাজে ভালো কিছু করার চেষ্টা করছে। এ নিয়ে প্রতিহিংসার কিছু নেই”।

Print Friendly, PDF & Email