|

ভালুকায় ব্যবসায়ীকে অপহরণ; নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ আটক-২

প্রকাশিতঃ ৩:৩৬ অপরাহ্ণ | সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯

ভালুকা থেকে অপহৃত ফেরদৌস নামের এক ব্যবসায়কে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে ভালুকা মডেল থানা পুলিশ। অপহরণ করে মারধর ও মুক্তিপণ আদায়ের অভিযোগে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আল আমিন সরকারসহ দুইজনকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ভালুকা মডেল থানায় ৫জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, শুক্রবার বিকেলে ত্রিশালের কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার একটি ছাত্রমেসে অভিযান চালিয়ে অপহৃত মো. ফেরদৌস আলমকে উদ্ধার ও অপহরণকারীদের আটক করে ভালুকা ও ত্রিশাল থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র আল আমিন সরকার(২০)। সে ত্রিশাল উপজেলার অলহরি গ্রামের ওয়াজেদ আলী সরকারের ছেলে এবং ত্রিশাল চরপাড়া গ্রামের মৃত মোশারফ হোসেনের ছেলে জিয়াদ হাসান (২২)।

পুলিশ ও অপহৃত ফেরদৌস জানায়, ব্যবসায়িক কাজে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভালুকায় আসেন সীডস্টোর এলাকার কাপড় ব্যবসায়ী ফেরদৌস। ভালুকা উপজেলা সদর বাসস্ট্যান্ডে ফলের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে সিগারেট খাওয়ার সময় অপরিচিত দু’ব্যক্তি এসে তাদের সিগারেট ধরানোর জন্য আগুন চায়। আগুনের জন্য তার নাকের কাছে ওই ব্যক্তি তাদের হাত নিলে সে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এসময় তাকে একটি গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। রাতে তাকে হাত-পা বেধে কয়েকদফা মারধর করে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপন দাবী করা হয়। অবশেষে ১লক্ষ টাকা দেয়ার দফারফা হলে শুক্রবার দুপুরে মুক্তিপনের টাকা নিয়ে ব্যবসায়ীর ভগ্নিপতি মোক্তার হোসেনকে ত্রিশাল কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যেতে বলে। বিষয়টি পুলিশকে জানালে ভালুকা ও ত্রিশাল থানা পুলিশ যৌথভাবে ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে মুক্তিপনের টাকা লেনদেনের সময় হাতেনাতে দুই অপহরনকারীকে গ্রেফতার করে। অপহৃত ফেরদৌসকে ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে ভালুকা থানায় ৫জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অন্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ময়মনসিংহ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এ নেওয়াজী জানান, ‘আমরা অভিযান চালিয়ে ওই দুইজনকে গ্রেফতার করেছি। বাকি আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযঙান অব্যাহত রয়েছে’।

Print Friendly, PDF & Email