|

ভালুকায় ওয়ার্ড আ‘লীগের অফিস দখল করে জুয়া ও মাদকের আড্ডা বসিয়েছে যুবলীগ নেতা

প্রকাশিতঃ ৫:৫৪ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৮, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক, ভালুকার খবর: ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ২ নং মেদুয়ারী ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের কার্যালয় জোর পূর্বক দখল করে জুয়া ও মাদক ব্যবসার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে । মেদুয়ারী ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন ওরফে আনার আকন্দের অত্যাচারে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে স্থানীয় আ‘লীগের নোতকর্মীসহ সাধারণ মানুষ। তার ভয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না। আনার আকন্দের বিরুদ্ধে জমি দখল থেকে শুরু করে বনের গাছ চুরি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডসহ রয়েছে নানা অভিযোগ। সেই সাথে এলাকায় প্রভাব খাটিয়ে গড়ে তুলেছেন বিশাল সন্ত্রাসী বাহিনী।

অন্যদিকে মেদুয়ারী ইউপির ৩ নং ওয়ার্ড আ.লীগের কার্যালয়ে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বসার কথা থাকলেও, বারান্দায়ও তারা যেতে পারছেন না। আনার আকন্দের দলীয় কোন পদ না থাকলেও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর ক্ষমতার দাপটে অফিসটি দখলে নিয়েছেন অনেক আগেই।

সূত্র জানায়, আনোয়ার হোসেন ওরফে আনার আকন্দের প্রধান সহযোগী ছিলেন তাঁর ভাগিনা মুরাদ ডাকাত। আনারের নির্দেশে মুরাদের নেতৃত্বে চলতো ভয়ংকর সব অপকর্ম। চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, জমি দখল। মুরাদকে বিভিন্ন সময় পুলিশ গ্রেফতার করলেও আনার আকন্দ তাকে বার বার জামিনে বের করে নিয়ে আসেন। ফার ফলে মুরাদ ডাকাত আরও বেশি বেপরোয়া হয়ে পরে। গতবছর জেলা গোয়েন্দা পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে মুরাদ ডাকাত নিহত হয়। কিছুদিন আনার আকন্দ গাঢাকা দিয়ে থাকলেও সমপ্রতি ক্ষমতাসীন দলের নাম ভাঙ্গিয়ে আবারও শুরু করেন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড। ক্ষমতাসীন দলের বগাজান গ্রামের ৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের কার্যালয় দখল করে সেখান থেকেই নতুন করে শুরু করেন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড।

কিছু দিন আগে মেদুয়ারী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় স্হানীয় এমপি আলহাজ্ব কাজিমুদ্দিন আহমেদ ধনুর উপস্থিতিতে ৩ নং ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি মোঃ ইসলাম মেম্বার আনার আকন্দের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড তুলে ধরে বলেন, আনার আকন্দ আওয়ামীলীগে অফিস দখল করে অফিসের ভিতরে জুয়া এবং মাদকের আকড়া বসিয়েছেন এবং নানাবিধ সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন। আমরা এই অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অচিরেই যেন আমাদের দলীয় কার্যালয়টি নেতাকর্মীদের বসার জন্য ব্যবস্থা হয়, সেই দাবি জানাচ্ছি’।

এ সময় স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দর উপস্থিতিতে এমপি যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আশ্বস্ত করেন। আওয়ামীলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে ৩৫ বছর ধরে আওয়ামীলীগ করছি। আনার আকন্দ আমাদের যখন তখন গালিগালাজ করে। সে আওয়ামীলীগের অফিসে বসে মাদক, জুয়া আড্ডা বসিয়ে থাকে নিয়মিত। অচিরেই যেন প্রসাশন আনার আকন্দের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করেন, সেই প্রত্যাশায় আছি আমরা এলাকাবাসীর।।

Print Friendly, PDF & Email