|

ঢাকা উত্তর সিটির কাউন্সিলর হিসেবে আ.লীগের সমর্থন ফরম জমা দিলেন সাজ্জাদ চিশতী

প্রকাশিতঃ ৯:১৭ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ২৭, ২০১৯

আনোয়ার হোসেন তরফদার, ভালুকার খবর: আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচনে ২২নং ওয়ার্ডে (হাতিরঝিল-রামপুরা) কাউন্সিলর পদে আওয়ামী লীগের দলীয় সমথর্ণের জন্য ফরম সংগ্রহের এক দিন পর তা জমা দিয়েছেন গণমাধ্যমকর্মী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা, সাবেক আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাজ্জাদ হোসেন চিশতী।

শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুর ১২টায় ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ফরম জমা দেন তিনি। এ সময় শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে তার সঙ্গে বিপুলসংখ্যক দলীয় নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

ফরম সংগ্রহের পর প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সাজ্জাদ হোসেন চিশতী বলেন, ‘পিতার হাত ধরে রাজনীতিতে এসেছি। পিতার অবর্তমানে আমার অভিভাবক আমার প্রাণপ্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনা। তিনি যেটা ভালো মনে করবেন, সেটাই করবেন। আমার নেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিচ্ছেন, এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। আসুন বদলে দিই রামপুরাকে।’

এদিকে ঢাকা উত্তর সিটি কাউন্সিলর নির্বাচনকে ঘিরে সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা চলছে। ২২নং ওয়ার্ডে বিগত দিনের গুম, খুন আতঙ্ক আজও তাড়া করছে এলাকাবাসীদের। এ কারণে আগামীদিনের এই ওয়ার্ডে কাউন্সিলর বেছে নিতে অনেক হিসাব-নিকাশ কষছেন ওয়ার্ডবাসী।

ঢাকা-১১ আসনের রামপুরা ও হাতিরঝিল থানার একাংশ নিয়ে গঠিত ২২নং ওয়ার্ড। উলন রোড, ওয়াপদা রোড, মহানগর প্রজেক্ট, পূর্ব রামপুরা ও বনশ্রী নিয়ে গঠিত এই ওয়ার্ড। এই ওয়ার্ডের ভোটার সংখ্যা এক লাখেরও বেশি। পেশাগত জীবনে সাজ্জাদ হোসেন চিশতী বর্তমানে দৈনিক স্বদেশ প্রতিদিনে যুগ্ম সম্পাদক হিসেবে কর্মরত।
এ ছাড়াও দ্য ডেইলি অবজারভার, দৈনিক ভোরের পাতা, দৈনিক মানবকণ্ঠ, দৈনিক বাংলাদেশের খবর, দৈনিক যুগান্তর, দৈনিক যায়যায়দিন, দৈনিক আজকালের খবরসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন।

জানতে চাইলে সাজ্জাদ হোসেন চিশতী স্বদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, মাদার অব হিউম্যানিটি, বিশ্বনেত্রী, বিশ্বের অন্যতম প্রভাবশালী প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী, দেশরত্ন শেখ হাসিনার আদর্শে সুখী, সমৃদ্ধশালী, দারিদ্র্যমুক্ত ও ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে একজন নগণ্য কর্মী হিসেবে কাজ করে যাওয়াই আমার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য।

তিনি এলাকাবাসীর উদ্দেশে বলেন, ‘সব ধরনের সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজি রোধে আগামী দিনগুলোতে কাজ করে যেতে চাই, ২২নং ওয়ার্ডবাসীদের সঙ্গে নিয়ে ব্যক্তি, পরিবার তথা সমাজ ধ্বংসকারী সর্বনাশা মাদকের বিরুদ্ধে দৃঢ়তার সঙ্গে সামাজিক আন্দোলনের রূপ দিতে চাই। সব নাগরিক সমস্যা ও ভোগান্তির অবসান ঘটিয়ে রামপুরাকে গড়ে তুলতে চাই একবিংশ শতাব্দীর সেরা বসবাসযোগ্য ওয়ার্ড হিসেবে। তিনি আরও বলেন, ‘সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন। এই সময় আমি যেন সফল হই।’

উল্লেখ্য, আগামী ৩০ জানুয়ারি (বৃহস্পতিবার) ঢাকা উত্তর (ডিএনসিসি) ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।  ভোটগ্রহণ হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)। ওইদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

Print Friendly, PDF & Email